ঢাকা শনিবার, মে ২৫, ২০১৯

ঢাকা-কলকাতা ট্রেন যাত্রায় তিন ঘণ্টা সময় কমছে

বিডিবার্তা অনলাইন আপডেট: November 1, 2017

ঢাকা ও কলকাতার মধ্যে চলাচলকারী মৈত্রী এক্সপ্রেসের যাত্রীদের এখন থেকে আর সীমান্তে ইমিগ্রেশন আর কাস্টমস চেকিং করাতে হবে না।

যাত্রা শুরুর আগেই কলকাতার চিতপুর এবং ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট স্টেশনে ট্রেনে ওঠার সময়েই পাসপোর্ট-ভিসা পরীক্ষার কাজ সেরে ফেলা হবে। বর্তমানে ঢাকা-কলকাতা ট্রেনে যাতায়াত করতে প্রায় এগারো ঘণ্টা সময় লাগে। নতুন নিয়ম চালু হলে সময় লাগবে প্রায় আট ঘণ্টা।

৯ নভেম্বর থেকে এ নতুন পদ্ধতি চালু হবে, যার ফলে মৈত্রী এক্সপ্রেসে করে কলকাতা থেকে ঢাকা যেতে যাত্রার সময় কমে যাবে প্রায় তিন ঘণ্টা।

এতোদিন ভারতের গেদে স্টেশন এবং বাংলাদেশে দর্শনা স্টেশনে যাত্রীদের ট্রেন থেকে নেমে পাসপোর্ট-ভিসা পরীক্ষা করাতে হতো। সেখানে কাস্টমস চেকিংও হত। এখন সেই নিয়ম তুলে দেয়া হচ্ছে। ট্রেনে ওঠার আগেই ওইসব পরীক্ষা হয়ে যাবে। সীমান্তে যাত্রীদের আর নামতে হবে না।

২০০৮ সালের পয়লা বৈশাখ মৈত্রী এক্সপ্রেসের প্রথম যাত্রার দিন থেকেই সীমান্ত-স্টেশনে নিজের সব মালপত্র নিয়ে যাত্রীদের নেমে গিয়ে পাসপোর্ট-ভিসা পরীক্ষা করাতে হতো। এরপর ট্রেনে উঠতে হতো মাল নিয়ে।

গেদেতে প্রায় ঘণ্টা দুয়েক লাইনে দাঁড়িয়ে পাসপোর্ট-ভিসা পরীক্ষা করিয়ে ট্রেনে উঠে আবার ১০ মিনিটের মধ্যে ওপারে গিয়ে দর্শনাতেও সেই একই কাজ করতে হতো।

দীর্ঘদিন ধরেই যাত্রীরা দাবি করছিলেন যে যাত্রার শুরুতেই যদি স্টেশনগুলোতে অভিবাসন এবং শুল্ক বিভাগ পাসপোর্ট-ভিসা-কাস্টমসের পরীক্ষা সেরে নেয়, তাহলে সীমান্ত স্টেশনে এই ঝামেলা পোহাতে হয় না এবং যাত্রার সময়ও অনেকটা কমে যায়।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন